পুরুষের জন্য কবর যিয়অরত করা মুস্তাহাব এবং দোয়ার বর্ণনা

৫৮১. বুরাইদা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ আমি ইতিপূর্বে তোমাদের কবর যিয়ারত করতে নিষেধ করেছিলাম। (এখন) তোমরা কবর যিয়ারত কর।

এটি ইমাম মুসলিমের বর্ণনা। অপর রিওয়ায়াতে আছে,রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ অতএব কেউ কবর যিয়ারত করতে চাইলে সে যেন তা করে। কারণ এটা পরকালকে স্মরণ করিয়ে দেয়।


৫৮২. আয়িশা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) যে রাত তাঁর ঘরে কাটাতেন, সেই রাতের শেষ দিকে উঠে তিনি (মদিনার কবরস্থান) জান্নাতুল বাকীতে চলে যেতেন এবং বলতেনঃ “হে কবরস্থানের অধিবাসীগণ! তোমাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক। তোমাদের অর্জিত হোক ঐ সব জিনিস, যার প্রতিশ্রুতি তোমাদের সাথে করা হয়েছে। আমরাও আল্লাহর ইচ্ছায় অচিরেই তোমাদের সাথে মিলিত হব। হে আল্লাহ! বাকী আল-গারকাদ -এর বাসিন্দাদের ক্ষমা করে দাও।৭২ (মুসলিম)

*৭২. বাকী আল-গারকাদ মসজিদে নববীর নিকটবর্তী একটি জায়গার নাম। এখানে মদীনাবাসীদের কবরসমূহ রয়েছে।


৫৮৩. বুরাইদা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবী (সা) মুসলমানদের কবর যিয়ারতে গিয়ে এ কথা বলতে শিক্ষা দিতেনঃ “হে কবরবাসী মু’মিন ও মুসলিমগণ! তোমাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক। আমরাও আল্লাহর নিকট আমাদের জন্য এবং তোমাদের জন্য ক্ষমা ও নিরাপত্তা প্রার্থনা করছি। “(মুসলিম)


৫৮৪. ইবনুল আব্বাস (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) মদিনার কতক কবরের পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় সেদিকে মুখ ফিরিয়ে বলেনঃ “হে কবরবাসীরা! তোমাদের প্রতি শান্তি বর্ষিত হোক, ক্ষমা করুন আল্লাহ আমাদের ও তোমাদেরকে। তোমরা তো আমাদের পূর্বসুরী। আমরা তোমাদের উত্তরসুরী। “ইমাম তিরমিযী এ হাদীস বর্ণনা করেছেন এবং বলেছেন, এটি হাসান হাদীস।


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?