হে আল্লাহ্! তুমি চাইলে আমাকে মাফ কর, এরূপে দোয়া করা মাকরূহ বরং ঐকান্তিকভাবে চাওয়ার মধ্যে পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা থাকাতে হবে

দু’আ করার সময় ‘হে আল্লাহ! তুমি চাইলে আমাকে ক্ষমা কর’ এরূপ বলে দু’আ করা মাকরূহ; বরং নিশ্চিত মনোভাব নিয়ে দু’আ করবে।

১৭৪৫. হযরত আবু হোরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) বলেছেন, তোমাদের কেউ যেন একথা বলে দোয়া না করে, “হে আল্লাহ! তুমি ইচ্ছা করলে আমাকে ক্ষমা কর বরং দৃঢ়তা সহকারে দোয়া করবে। কেননা তাঁর ওপর কারো জোর বা প্রভাব বিস্তার চলে না।” (বুখারী ও মুসলিম)

মুসলিম শরীফের অন্য এক বর্ণনায় রয়েছে, পরিপূর্ণ ঈমান ও আগ্রহ সহকারে এবং দৃঢ় মনোবল নিয়ে দোয়া করতে হবে। কেননা আল্লাহ বান্দাকে যা দান করেন তা তার কাছে বিরাট কিছু নয়।


১৭৪৬. হযরত আনাস (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, যখন তোমাদের কেউ দোয়া করবে তখন পরিপূর্ণ ঈমান ও দৃঢ়তা সহকারে দোয়া করবে। কেউ যেন এরূপ না বলে, হে আল্লাহ! তোমার ইচ্ছা হলে আমাকে দাও। কেননা, আল্লাহর উপর কারো জোর বা প্রভাব খাটে না বা কাউকে কিছু দেয়া তাঁর জন্য বাধ্যতামূলক নয়। (বুখারী ও মুসলিম)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?