রোযাদারকে ইফ্‌তার করাবার এবং যে রোযাদারের সামনে পানাহার করা হয় তার গুরুত্ব আর যে ব্যক্তি আহার করায় তার উপস্থিতিতে আহারকারীর দোয়া করা

রোযা পালনকারীকে ইফতার করানো এবং  যে রোযা পালনকারীর সামনে পানাহার করা হয় তার ফযীলত আর যে ব্যক্তি আহার করায় তার উপস্থিততে আহারকারীর দুআ

১২৬৬. হযরত যায়েদ ইবনে খালেদ আল জুহানী (রা) নবী করীম (সা) থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেনঃ যে ব্যক্তি কোন রোযাদারকে ইফতার করায় সে তার (রোযাদারের) সমান প্রতিদান পায়। কিন্তু এর ফলে রোযা পালনকারীর প্রতিদানের মধ্যে কোন কমতি হবে না। (তিরমিযী) ইমাম তিরমিযী বলেন, হাদীসটি হাসান ও সহীহ।


১২৬৭. হযরত উম্মে উমারা আল-আনসারীয়া (রা) থেকে বর্ণিত। নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম (একদিন) তাঁর নিকট গেলেন। তিনি তাঁর সামনে খাবার এনে রাখলেন। তিনি তাঁকে বললেনঃ ‘তুমি খাও’।   তিনি বললেন ‘আমি রোযাদার’।  রাসূলুল্লাহ (সা) বললেনঃ রোযাদারের সামনে যখন অন্য লোকেরা আহার করে তখন তাদের আহার শেষ না হওয়া পর্যন্ত ফিরিশতাগণ তাঁর (রোযাদারের) জন্য রহমত নাযিলের দুআ করতে থাকেন। অন্য বর্ণনায় বলা হয়েছেঃ “তারা পেট ভরে আহার না করা পর্যন্ত।” (তিরমিযী) ইমাম তিরমিযী বলেন, হাদীসটি হাসান।


১২৬৮. হযরত আনাস (রা) থেকে বর্ণিত। নবী করীম (সা) একদিন সা’দ ইবনে উবাদার নিকট আসেন। অতঃপর হযরত সা’দ (রা) তাঁর জন্য রুটি ও জয়তুনের তেল নিয়ে আসেন। তিনি তা আহার করেন। তারপর নবী করীম (সা) বললেনঃ তোমার নিকট রোযা পালনকারীরা ইফতার করলো এবং সজ্জনরা তোমার খাদ্য আহার করল। আর ফেরেশতারা তোমার জন্য ইস্তিগফার করল। (আবু দাঊদ)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?