মিথ্যা সাক্ষ্য প্রদান কঠোররূপে হারাম

মিথ্যা সাক্ষদান কঠোরভাবে হারাম

আল্লাহ তায়ালা বলেছেনঃ

“মিথ্যা কথা-বার্তা পরিহার কর।” (সূরা হজ্জঃ ৩০)

তিনি আরো বলেছেনঃ

“যে সম্পর্কে তোমার কোন জ্ঞান নেই তার পিছনে লেগে যেও না।” (সূরা ইসরাঃ ৩৬)

তিনি আরো বলেছেনঃ

“যে কথাই তার মুখ থেকে উচ্চারিত করে তা সংরক্ষণের জন্য সদা প্রস্তুত একজন পর্যবেক্ষক মওজুদ রয়েছে।” (সূরা কাহফঃ ১৮)

তিনি আরো বলেছেনঃ

“বস্তুত তোমার রব ঘাঁটিতে প্রতীক্ষামান হয়ে আছেন।” (সূরা ফজরঃ ১৪)

তিনি আরো বলেছেনঃ

“রহমানের বান্দা তারা, যারা মিথ্যা সাক্ষ্য দেয় না। কোন অর্থহীন বিষয়ের মুখোমুখী হলে তারা ভদ্র ও শরীফ মানুষের মতই পাশ কাটিয়ে চলে যায়।” (সূরা ফুরকানঃ ৭২)

 

১৫৫১. হযরত আবু বকর (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, সবচেয়ে বড় পাপ কি, আমি কি তোমাদের তা অবহিত করব না। আমরা বললাম হ্যাঁ, ইয়া রাসূলুল্লাহ (স)! তিনি বললেন, আল্লাহর সাথে শরীক করা এবং পিতামাতাকে কষ্ট দেয়া। বর্ণনাকারী বলেন, তিনি এ কথা কথাসমূহ হেলান দেয়া অবস্থায় বলছিলেন। এরপর তিনি সোজা হয়ে বসলেন এবং বললেন, মনে রাখ, মিথ্যা সাক্ষ্য দেয়া। তিনি এ কথাটি পুনঃপুন বলতে থাকলেন। এমনকি আমরা বললাম, আহ! তিনি এখন চুপ করে যেতেন! (বুখারী ও মুসলিম)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?