দন্ডায়মান, বসা ও শায়িত অস্থায় এবং হাদাস (বিনা অযুতে), জানাবাত (গোসল ফরয অবস্থায়) ও ঋতুমতী অবস্থায় আল্লাহ্‌র স্মরণ করার বৈধতা, তবে জুনূবী গোসল ফরয ও ঋতুমতী মহিলার জন্য কুরআন পাঠ করা বৈধ নয়

দাঁড়ানো, বসা ও শায়িত অবস্থায় এবং হাদাস, জানাবত ও ঋতুবতী অবস্থায় আল্লাহর যিকির করার বৈধতা, জুনুবী ও ঋতুবতী মহিলার জন্য কুরআন পড়া জায়েয নয়।

আল্লাহ তায়ালা বলেছেনঃ

“নিঃসন্দেহে আকাশসমূহ ও পৃথিবীর সৃষ্টি এবং দিন রাতের পরিবর্তনের মধ্যে বুদ্ধিমান লোকদের জন্য নিদর্শনসমূহ রয়েছে, যারা আল্লাহর যিকির করে দাঁড়িয়ে, বসে ও শায়িত অবস্থায়।” (সূরা ইমরানঃ ১৯০-১৯১)

 

১৪৪৫. হযরত আয়েশা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) সব সময় আল্লাহর যিকর করতেন। (মুসলিম)


১৪৪৬. হযরত আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা) নবী করীম (সা) থেকে বর্ণনা করেন যে, তিনি বলেছেনঃ তোমাদের কেউ যদি তার স্ত্রীর কাছে আসে, তবে সে বলবেঃ “বিসমিল্লাহি আল্লাহুম্মা জান্নিবনাশ শাইতানা ওয়া জান্নিবিশ শাইতানা মা- রাযাকতানা- (আল্লাহর নামে শুরু করছি, হে আল্লাহ! শয়তান থেকে আমাদের দূরে রাখুন আর শয়তানকে তার থেকে দূরে রাখুন যা আমাদের দান করবেন।” অতএব এ মিলনের ফলে যদি তাদের কোন সন্তান জন্ম নেয় তবে শয়তান তার কোন ক্ষতি করতে পারবে না।  (বুখারী ও মুসলিম)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?