তোহফা দেয়ার বেলায় সন্তানদের মধ্যে কাউকে অগ্রাধিকার দেয়া সঙ্গত নয়

উপহার দেয়ার বেলায় সন্তানদের মধ্যে কাউকে অগ্রাধিকার দেয়া মাকরূহ 

১৭৭৫. হযরত নু’মান ইবনে বাশীর (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, তাঁর পিতা তাঁকে নিয়ে রাসূলুল্লাহ (স) -এর কাছে গিয়ে বললেন, আমি আমার এ পুত্রকে আমার একটি ক্রীতদাস দিয়েছি। রাসূলুল্লাহ (স) বললেন, তুমি কি তোমার সব পুত্রকে এর মত করে ক্রীতদাস দিয়েছ। তিনি বলেন, না । এ কথা শুনে রাসূলুল্লাহ (স) বলেন, ক্রীতাদসটি নিয়ে ফেরত নিয়ে নাও।

অপর এক বর্ণনায় রয়েছে, রাসূলুল্লাহ (স) বললেন, তুমি কি সব পুত্রকে এরূপে দিয়েছ? তিনি বলেন, না। তখন নবী করীম (স) বলেন, মহান আল্লাহকে ভয় কর এবং সন্তানদের মধ্যে ন্যায় বিচার কর। নু’মান (রা) বললেন, আমার পিতা গৃহে ফিরে এসে উপহারটি ফেরত দিলেন।

অন্য এক বর্ণনায় রয়েছে, রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, তাদের প্রত্যেককেই কি এরূপ উপহার দিয়েছ। তিনি বললেন, না। নবী করীম (স) বলেন, তাহলে আমাকে সাক্ষী করো না। কেননা, আমি অত্যাচরীর সাক্ষী হতে পারি না।

অপর এক বর্ণনায় রয়েছে আমাকে জুলুমের সাক্ষী করো না। অপর এক বর্ণনায় রয়েছে, আমাকে ছাড়া অন্য কাউকে এর সাক্ষী রাখ। এরপর তিনি বললেন, তুমি কি চাও যে তোমার সন্তান তোমার সাথে সদাচারণ করুক? তিনি বললেন, হ্যাঁ। তখন নবী করীম (স) বলেন, তাহলে এরূপ করো না। (বুখারী ও মুসলিম)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?