জান্নাতের সর্বনিম্ন ও সর্বোচ্চ মর্যাদার অধিকারী

৫৩. মুগিরা ইবন শু‘বা রাদিয়াল্লাহু আনহু রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম থেকে মরফূ হিসেবে বর্ণনা করেন, তিনি বলেছেন:

“মূসা আলাইহিস সালাম তার রবকে জিজ্ঞাসা করেন জান্নাতীদের নিম্ন স্তর কি? তিনি বলেন: সে ব্যক্তি যে জান্নাতীদের জান্নাতে প্রবেশ করানোর পর আসবে, তাকে বলা হবে: জান্নাতে প্রবেশ কর। সে বলবে: হে আমার রব কিভাবে, অথচ লোকেরা তাদের স্থানে পৌঁছে গেছে, তাদের হক তারা গ্রহণ করেছে? তাকে বলা হবে: তুমি কি সন্তুষ্ট যে তোমার জন্য দুনিয়ার বাদশাহদের রাজত্বের ন্যায় রাজত্ব হোক? সে বলবে: হে আমার রব, আমি সন্তুষ্ট। তিনি বলবেন: তোমার জন্য তা, এবং তার সমান, তার সমান ও তার সমান, পঞ্চম বারে বলল: হে আমার রব আমি সন্তুষ্ট হয়েছি। মূসা আলাইহিস সালাম জিজ্ঞাসা করেন: হে আমার রব, তাদের মধ্যে সর্বোচ্চ মর্যাদার অধিকারী? তিনি বললেন: তাদেরকে আমি চেয়েছি, আমি নিজ হাতে তাদের সম্মান রোপণ করেছি ও তার ওপর মোহর এঁটে দিয়েছি, যা কোনো চোখ দেখে নি, কোনো কান শুনে নি এবং মানুষের অন্তরে কল্পনা হয় নি। তিনি বলেন: কুরআনে তার নমুনা হচ্ছে:

“অতঃপর কোনো ব্যক্তি জানে না তাদের জন্য ‎‎চোখ জুড়ানো কী জিনিস লুকিয়ে রাখা হয়েছে”। [সূরা আস-সাজদাহ, আয়াত: ১৭] (সহীহ মুসলিম) হাদীসটি সহীহ।


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?