এক মুসলমান অপর মুসলমানের সাথে তিনদিনের বেশী কথা বন্ধ রাখা নাজায়েয। তবে বিদ্‌য়াত ও পাপের কাজ প্রকাশ তা জায়েয

কোন মুসলমান অপর মুসলমানের সাথে তিন দিনের অধিক কথা বন্ধ রাখা নিষেধ, তবে বিদআত ও গোনাহের কাজ প্রকাশ পেলে জায়েয

আল্লাহ তায়ালা বলেছেনঃ

“মুমিনরা পরস্পর ভাই ভাই। অতএব ভাইদের সম্পর্ক পুনর্গঠিত করে দাও। (সূরা হুজুরাতঃ ১০)

তিনি আরো বলেছেনঃ

“পুণ্য ও আল্লাহ-ভীতি মূলক কাজে পরস্পরকে সহযোগিতা কর। গুনাহ ও সীমা-লঙ্ঘনের কাজে সহযোগিতা কর না। আল্লাহকে ভয় কর। কেননা তাঁর দন্ড অত্যন্ত কঠিন।” (সূরা মায়েদাঃ ২)

 

১৫৯২. হযরত আনাস (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, পারস্পরিক সম্পর্ক ছিন্ন করো না, পরস্পর পশ্চাতে লেগো না, হিংসা-বিদ্বেষ ও ঘৃণা পোষণ করো না। হে আল্লাহর বান্দারা! তোমরা ভাই ভাই হয়ে থাক। কোন মুসমানের জন্য তার মুসলামান ভাইকে তিন দিনের অধিক পরিত্যাগ করা হালাল নয়। (বুখারী ও মুসলিম)


১৫৯৩. হযরত আবু আইয়ুব (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, কোন মুসলমানের জন্য তার কোন মুসলমান ভাইকে তিন দিনের বেশি বিচ্ছিন্ন করে রাখা জায়েয নয়। এভাবে তারা উভয়ে যখন মুখোমুখি হয় তখন একজন অগ্রসর হয় কিন্তু অপরজন এড়িয়ে যায়। তবে এদের মধ্যে যে পূর্বে সালাম প্রদান করবে সে-ই উত্তম। (বুখারী ও মুসলিম)


১৫৯৪. হযরত আবু হোরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, প্রতি সোমবার ও বৃহস্পতিবার মানবের আমল উপস্থাপন করা হয়। যে ব্যক্তি আল্লাহর শরীক করে না এরূপ প্রত্যেক ব্যক্তিকে আল্লাহ ক্ষমা করে দেন। তবে যে ব্যক্তির তার মুসলমান ভাইয়ের সাথে শত্রুতা রয়েছে তাকে মাফ করেন না। তাদের সর্ম্পকে আল্লাহ বলেন, এ দু’জনের ব্যাপারটি রেখে দাও যাতে তারা পারস্পরিক সম্পর্ক সংশোধন করে নিতে পারে। (মুসলিম)


১৫৯৫. হযরত জাবের (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (স)-কে বলতে শুনেছি। আরব উপদ্বীপের মুসলমানদের কাছ হতে শয়তান আনুগত্য পাওয়ার ব্যাপারে নিরাশ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু তাদের মধ্যে কলহ-বিবাদ, মনোমালিন্য ও পারস্পরিক সম্পর্ক কলহ-বিবাদে উসকিয়ে দেয়ার ব্যাপারে সে নিরাশ হয়নি। (মুসলিম)


১৫৯৬. হযরত আবু হোরাইয়া (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, কোন মুসলমানের জন্য তার কোন মুসলমান ভাইয়ের সাথে তিন দিনের অধিক সর্ম্পক ছিন্ন করে থাকা জায়েয নয়। যে ব্যক্তি তিন দিনের অধিক বিচ্ছিন্ন অবস্থায় থাকল এবং মারা গেল সে দোযখে যাবে। (আবু দাঊদ)


১৫৯৭. হযরত আবু খিরাশ হাদরাদ ইবনে আবু হাদরাদ আসলামী বা সুলামী আস-সাহাবী (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি নবী করীম (স)-কে বলতে শুনেছেন, যে ব্যক্তি তার ভাইয়ের সাথে এক বছর যাবত সম্পর্ক ছিন্ন করে থাকল, সে যেন তাকে হত্যা করল। (আবু দাঊদ)


১৫৯৮. হযরত আবু হোরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) ইরশাদ করেছেন, কোন মু’মিন ব্যক্তির জন্য অন্য কোন ব্যক্তিকে তিনদিনের অধিক পরিত্যাগ করে থাকা বৈধ নয়। তিন দিন গত হওয়ার পর সাক্ষাৎ করে যদি সে তাকে সালাম করে এবং অপরজনও সালামের উত্তর দেয় তবে উভয়ই পুণ্যের অংশীদার হবে। যদি সে সালামের উত্তর না দেয় তবে পাপী হবে। তবে সালাম প্রদানকারী পরিত্যাগ করার পাপ হতে মুক্ত হয়ে যাবে। (আবু দাঊদ)

তিনি আরো বলেছেনঃ যদি এই সম্পর্কচ্ছেদ আল্লাহর সন্তষ্টি অর্জনের জন্য হয়ে থাকে তবে কোন দোষ হবে না।


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?