স্বপ্ন ও এর সংশিস্নষ্ট বিষয়াবলীর বর্ণনা

স্বপ্ন ও তার সাথে সম্পর্কিত বিষয়াবলী

আল্লাহ তায়ালা বলেছেনঃ

” আর তার নিদর্শনের অন্তর্ভূক্ত হচ্ছে তোমাদের দিনের ও রাতের ঘুম।” (সূরা রূমঃ ২৩)

 

৮৩৮. হযরত আবু হুরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) কে বলছেনঃ “সুসংবাদসমূহ ব্যতীত নবুওয়াতের কিছুই অবশিষ্ট থাকে নি।”  লোকেরা জিজ্ঞেস করল, সুসংবাদসমূহ কি? তিনি জবাব দিলেনঃ “সৎস্বপ্ন।”

ইমাম বুখারী হাদীসটি রিয়ায়াত করেছেন।


৮৩৯. হযরত আবু হুরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত। নবী (সা) বলেছেনঃ কিয়ামত নিকটবর্তী হলে মু’মিনের স্বপ্ন খুব কমই মিথ্যা হবে। মু’মিনের স্বপ্ন নবুওয়াতের ছেচল্লিশ ভাগের এক ভাগ।

ইমাম বুখারী ও ইমাম মুসলিম হাদীসটি রিয়ায়াত করেছেন।


৮৪০. হযরত আবু হুরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ যে ব্যক্তি স্বপ্নের মধ্যে আমাকে দেখল, সে শীঘ্রই জাগ্রত অবস্থায় আমাকে দেখবে অথবা সে যেন জাগ্রত অবস্থায় আমাকে দেখলো। শয়তান আমার স্বরূপ ধারণ করতে পারে না।   (বুখারী, মুসলিম)


৮৪১. আবু সাঈদ আল খুদরী (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি নবী (সা) কে বলতে শুনেছেনঃ তোমাদের কেউ তার পছন্দনীয় স্বপ্ন দেখলে সেটা হয় আল্লাহর পক্ষ থেকে। তার জন্য আল্লাহর প্রশংসা করা এবং (বন্ধুদের) কাছে তা বিধৃত করা উচিত। অন্য এক বর্ণনায় বলা হয়েছেঃ তখন সে যাকে ভালোবাসে তাকে ছাড়া আর কাউকে সেটা না বলা উচিত। আর সে যদি অপছন্দনীয় স্বপ্ন দেখে তাহলে এটা হয় শয়তানের পক্ষ থেকে। তার ক্ষতি থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চাওয়া এবং কারো কাছে তা বর্ণনা না করা উচিত। তাহলে এ স্বপ্ন তার কোন ক্ষতি করতে পারবে না।

ইমাম বুখারী ও ইমাম মুসলিম হাদীসটি বর্ণনা করেছেন।


৮৪২. আবু কাতাদা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, নবী (সা) বলেছেনঃ সৎ স্বপ্ন এবং অন্য রিওয়ায়াত অনুযায়ী ভালো স্বপ্ন আল্লাহর পক্ষ থেকে হয় এবং খারাপ স্বপ্ন হয় শয়তানের পক্ষ থেকে। কাজেই কোন ব্যক্তি অপছন্দনীয় স্বপ্ন দেখলে সে যেন তার বাঁ দিকে তিনবার থুথু নিক্ষেপ করে এবং শয়তানের ক্ষতি থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চায়। তাহলে এ স্বপ্ন তার কোন ক্ষতি করতে পারবে না।

ইমাম বুখারী ও ইমাম মুসলিম হাদীসটি বর্ণনা করেছেন।


৮৪৩. জাবির (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (সা) বলেনঃ তোমাদের কেউ অপছন্দনীয় স্বপ্ন দেখলে সে যেন তার বাঁ দিকে তিনবার থুথু ফেলে, তিনবার শয়তান থেকে আল্লাহর কাছে আশ্রয় চায় এবং সে যে কাতে শুয়েছিল তার পরিবর্তন করে।

ইমাম মুসলিম এ হাদীসটি বর্ণনা করেছেন।


৮৪৪. আবুল আসকা ওয়াসিলা ইবনুল আসকা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (সা) বলেছেনঃ “বৃহত্তম মিথ্যা হচ্ছে অন্য ব্যক্তিকে নিজের বাপ বলে দাবি করা অথবা তার চোখকে এমন জিনিস দেখানো যা সে দেখেনি (অর্থাৎ মিথ্যা স্বপ্ন বর্ণনা করা) অথবা রাসূলুল্লাহ (সা)-এর নামে এমন কথা বলা যা তিনি বলেন নি।” (বুখারী)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?