মসজিদে ঝগড়া কলহ করা, উচ্চস্বরে শব্দ করা বা কথা বলা, হারানো বস্তু তালাশ করা, কেনা-বেচা, ভাড়া ইত্যাদি লেন-দেন করা মাকরূহ

১৬৯৮. হযরত আবু হোরায়রা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি রাসূলুল্লাহ (স) বলেছেন, “যে ব্যক্তি কাউকে মসজিদে হারানো কোন জিনিস খুঁজতে শুনবে, সে বলবে, আল্লাহ যেন তোমার বস্তু ফেরত না দেন। কারণ মসজিদ এ কাজের জন্য বানানো হয়নি। (মুসলিম)


১৬৯৯. হযরত আবু হোরাইরা (রা) থেকে বর্ণিত। রাসূলুল্লাহ (স) বলেছেন, যখন তোমরা কোন ব্যক্তিকে মসজিদের ভেতরে ক্রয়-বিক্রয় করতে দেখ, তখন বলবে, আল্লাহ তোমার বাণিজ্যে লাভজনক না করুন। আর যখন তোমরা দেখবে কোন ব্যক্তি তার হারানো তার হারানো বস্তু মসজিদের মধ্যে তালাশ করছে তখন বলবে, আল্লাহ যেন তোমার বস্তু ফেরত না দেন। (তিরমিযী)


১৭০০. হযরত বুরায়দা (রা) থেকে বর্ণিত। এক ব্যক্তি মসজিদে হারানো বস্তু তালাশ করছিল। সে বলল কে লাল বর্ণের উটের প্রতি আহ্বান জানাল? রাসূলুল্লাহ (স) বললেন, তোমার উট পাবে না। যে উদ্দেশ্যে মসজিদ নির্মাণ করা হয় সে উদ্দেশ্যেই তৈরি করা হয়েছে। (মুসলিম)


১৭০১. হযরত আমর ইবনে শুয়াইব তাঁর পিতা হতে, তিনি তাঁর দাদা হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ (স) মসজিদে ক্রয়-বিক্রয় করতে, হারানো বস্তু অনুসন্ধান করতে এবং কবিতা পাঠ করতে নিষেধ করেছেন। (আুব দাউদ ও তিরমিযী)


১৭০২. হযরত সায়েব ইবনে ইয়াযীদ (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেন, আমি মসজিদে ছিলাম। এক ব্যক্তি আমার প্রতি পাথর নিক্ষেপ করল। তাকিয়ে দেখলাম ওমর ইবনে খাত্তাব (রা) তিনি বললেন, যাও, এ দুই ব্যক্তিকে আমার কাছে ডেকে নিয়ে এস। আমি ব্যক্তিদ্বয়কে তাঁর কাছে ডেকে আনলাম। তিনি বললেন, তোমরা কোথা হতে এসেছ? তারা বলল, আমরা তায়েফের অধিবাসী। হযরত ওমর (রা) বললেন, তোমরা যদি শহরের অধিবাসী হতে তাহলে আমি তোমাদের শাস্তি দিতাম। কেননা তোমরা রাসূলুল্লাহ (স) -এর মসজিদে উচ্চস্বরে কথা বলছ। (বুখারী)


 

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?