কারো অনুপস্থিতিতে তার জন্য প্রার্থনা বা দুআ করার গুরুত্ব

আল্লাহ তায়ালা বলেছেন,

 “আর যারা তাদের পরে আগমন করেছে তারা বলে,  হে আমাদের প্রভু! আমাদের ক্ষমা কর এবং আমদের পূর্বে আমাদের যেসব ভাইয়েরা ঈমান এনেছে তারেদকেও ক্ষমা করে দাও।” (সূরা হাশরঃ ১০)

তিনি আরো বলেছেন,

 “আর তোমাদের পাপের জন্য ইস্তেগফার করতে থাক আর মু’মিন পুরুষ ও মু’মিন নারীদের জন্যও।” (সূরা মুহাম্মদঃ ১৯)

তিনি ইব্রাহীম (আলাইহিস সালাম)-এর উক্তি উদ্ধৃত করে বলেনঃ

“হে আমাদের প্রভু! আমাকে ক্ষমা কর এবং আমার পিতা মাতাকে ও সকল ঈমানদারদেরকে ক্ষমা কর, যেদিন হিসাব নেয়া হবে।” (সূরা ইব্রাহীমঃ ৪১)

 

১৪৯৪. হযরত আবু দারদা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি রাসূলুল্লাহ ক(স)-কে বলতে শুনেছেন,  “যে কোন মুসলমান ভাই তার ভাইয়ের জন্য যখন তার অসাক্ষাতে দু’আ করে, তখন ফেরেশতা বলেন,  তোমার জন্যও অনুরূপ রয়েছে।” (মুসলিম)


১৪৯৫. হযরত আবু দারদা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন রাসূলুল্লাহ(স) বলতেন,  “মুসলমান ভাইয়ের অসাক্ষাতে যে কোন মুসলমান ব্যক্তির দুআ তার জন্য কবূল হয়। তার মাথার কাছে একজন দায়িত্বশীল ফেরেশতা নিযুক্ত থাকে। যখনই ঐ ব্যক্তি তার ভাইয়ের কল্যাণের জন্য কোন দুআ করে তখনই ঐ নিযুক্ত দায়িত্বশীল ফেরেশতা বলে,  আমীন,  তোমার জন্যেও অনুরূপ।”(মুসলিম)

Was this article helpful?

Related Articles

Leave A Comment?